‘দল ছাড়ুন, টিকিট ধরুন’! বিক্ষুব্ধদের বার্তা বিজেপির

Published by:
https://www.eimuhurte.com/wp-content/uploads/2021/09/em-logo-globe.png

Koushik Dey Sarkar

27th November 2021 11:27 am | Last Update 27th November 2021 11:32 am

নিজস্ব প্রতিনিধি: আগেই ইঙ্গিত মিলেছিল সবাইকে টিকিট দেওয়া হবে না। বিশেষ করে যারা বয়স্ক আর অসুস্থ তাঁদের এবারে টিকিট দেওয়া হবে না। পরিবর্তে তুলে আনা হবে নতুন প্রজন্মকে। বাস্তবেও সেটাই দেখা গেল। শুক্রবার রাতে ঘোষিত হয়েছে কলকাতা পুরনিগমের জন্য রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী তালিকা। সেই তালিকা সামনে আসতেই কেউ খুশিতে নেচেছেন, কেউ বা চোখের জল ফেলেছেন। আবার অভিমানে কেউ কেউ টুইটও করেছেন। শনিবার সকাল থেকেই আবার কেউ কেউ অতি উৎসাহে প্রচারের কাজও শুরু করে দিয়েছেন। তবে দলের প্রতি যে আশা সকলের ছিল তার পূর্ণতা বা অপূর্ণতা ঘিরে এদিন তৃণমূলের অন্দরে যে জোয়ার ভাটা শুরু হয়েছে তার জেরে উইকেট পতন হলে অবাক হওয়ার মতো কিছু থাকবে না। আর সেই অপেক্ষাতেই বসে আছে বঙ্গি বিজেপি। দল ছাড়লেই মিলবে টিকিট, মিলছে এমন প্রতিশ্রুতিও।  

২০২১ সালের কলকাতা পুরনিগমের নির্বাচনের জন্য তৃণমূলের টিকিট পেয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সহ আরও ৫জন বিধায়ক। এরা হলেন দেবাশিষ কুমার, দেবব্রত মজুমদার, অতীন বিশ্বাস, রত্না চট্টোপাধ্যায় ও পরেশ পাল। টিকিট পেয়েছেন দক্ষিণ কলকাতার সাংসদ মালা রায়। সেই তালিকায় নাম উঠেছে তৃণমূলনেত্রীর ভ্রাতৃবধূ কাজরী বন্দ্যোপাধ্যায়ের, নাম উঠেছে রাজ্যের মন্ত্রী শশী পাঁজার মেয়ে পূজা পাঁজার, নাম উঠেছে রাজ্যের আরেক মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের ছেলে সৌরভ বসুর, নাম উঠেছে প্রয়াত বামনেতা ক্ষিতি গোস্বামীর কন্যা বসুন্ধরা গোস্বামীরও। টিকিট দেওয়া হয়েছে স্বর্ণকমল সাহার ছেলে সন্দীপন সাহাকে। টিকিট পেয়েছেন সদ্য প্রয়াত রাজ্যের বর্ষীয়ান রাজনীতিক তথা মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমা চট্টোপাধ্যায়। টিকিট পেয়েছেন মেয়র পারিষদ তারক সিং সহ তাঁর ছেলে অমিত সিং ও মেয়ে কৃষ্ণা সিংও। কিন্তু ওই তালিকায় নাম ওঠেনি পূর্বতন ৪০জন কাউন্সিলরের। নাম বাদ গিয়েছে সাংসদ শান্তনু সেনেরও। তবে তাঁর স্ত্রী কাকলি সেন টিকিট পেয়েছেন। নাম ওঠেনি রাজ্যের মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের ছেলে সায়নদেব চট্টোপাধ্যায়েরও। সেই না পাওয়ার জেরেই এদিন তিনি টুইট করে জানিয়ে দিয়েছেন নিজের ক্ষোভ। বলেছেন, ‘আত্মত্যাগ করতে বলার সময় ওঁরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু, আত্মত্যাগ করার পর ওঁরা বলল, এখনও সময় হয়নি। এই কাহিনী থেকে একটাই শিক্ষা নিলাম। নিজের সময় আসা অবধি অন্যদের জন্য হাততালি দিয়ে যেতে হয়।’  

এই ক্ষোভকেই এখন হাতিয়ার করতে চলেছে বঙ্গ বিজেপি। সূত্রে জানা গিয়েছে, যে ৪০জন কাউন্সিলর এবার টিকিট পাননি তৃণমূলে তাঁদের কাছে রাতের মধ্যেই বার্তা চলে গিয়েছে বিজেপির তরফে। ‘দল ছাড়ুন, টিকিট ধরুন’। বার্তা গিয়েছে তাঁদের কাছেও যারা টিকিটের প্রত্যাশা করেছিলেন বা দাবি জানিয়েছিলেন, কিন্তু তা পাননি, এমনদের কাছেও। তবে ক্ষুব্ধ বিক্ষুব্ধ সবাই যে বিজেপির দিকে পা বাড়াবেন এমনটা নয়, আবার কেউ যে পা বাড়াবেন না তেমনটাও কিন্তু নয়। সব থেকে বড় কথা নির্বাচন স্বচ্ছ হলে চোরাস্রোতের একটা ধাক্কার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। বিশেষ করে নতুন যারা টিকিট পেয়েছেন তাঁদের ক্ষেত্রে। আগামী দিনে যা রাজ্যের শাসক দলের মাথাব্যাথার কারন হয়ে উঠতে পারে বলে ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে। তবে তৃণমূলের অন্দরে এই ক্ষোভ বিক্ষোভকে কাজে লাগাতে উঠে পড়ে লেগেছে বিজেপি। কলকাতার ১৪৪টি ওয়ার্ডে বিজেপির প্রার্থী দেওয়া নিয়ে অনেকেরই সন্দেহ রয়েছে। অল্প সময়ে তাঁরা হয়তো সব ওয়ার্ডে প্রার্থী দিতে পারবে না। সেই জায়গায় তৃণমূলে টিকিট না পাওয়া কাউন্সিলর ও নেতাকর্মীদের নিজেদের দিকে টেনে কিছুটা হলেও মুখরক্ষা করার সুযোগ পেতে পারে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব।

More News:

Leave a Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

নজরকাড়া খবর

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

Subscribe to our Newsletter

134
মিশন দিল্লি, পিকের চাণক্যনীতি কতটা কাজ দিল মমতার?

You Might Also Like