এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




২০ শতাংশ প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা, খুনে অভিযুক্ত ৪০ জন  




নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: ‘দাগ আচ্ছে হ্যায়’। কাপড় কাঁচা সাবানের বিজ্ঞাপনে এক বহুজাতিক সংস্থাই ব্যবহার করেছিল এমন টিজার। খুব জনপ্রিয় হয়েছিল ওই বিজ্ঞাপন। সেই বিজ্ঞাপনে বোধ হয় মজেছেন দেশের শীর্ষ রাজনৈতিক দলগুলির শীর্ষ নেতৃত্ব। অন্তত চলতি লোকসভা ভোটের প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে যেভাবে ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্তদের মনোনয়ন দিয়েছেন তাঁরা, তাতে এ কথা বললে খুব একটা অত্যুক্তি হবে না। চলতি লোকসভা ভোটের ময়দানে থাকা ২০ শতাংশ প্রার্থীর বিরুদ্ধেই রয়েছে ফৌজদারি মামলা। আর খুন, খুনের চেষ্টা, ধর্ষণ-সহ গুরুতর ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত ১৪ শতাংশ প্রার্থী।

লোকসভা ভোটে লড়াইয়ের জন্য প্রার্থীরা নির্বাচন কমিশনের কাছে যে হলফনামা জমা দিয়েছেন তা বিশ্লেষণ করে বুধবার এক পুঙ্খানুপুঙ্খ রিপোর্ট প্রকাশ করেছে বেসরকারি নির্বাচনী নজরদারি সংস্থা অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফর্মস (এডিআর)। ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, অষ্টাদশ লোকসভা নির্বাচনে ভোটের ময়দানে থাকা ১,৬৪৩ প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। গুরুতর ধারায় মামলা চলছে ১,১৯১ জনের বিরুদ্ধে। ৯৮ জন প্রার্থী জানিয়েছেন, তাঁরা ফৌজদারি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত। ৪০ জন জানিয়েছেন তাঁদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা (৩০২ ধারা) চলছে। খুনের চেষ্টার (৩০৭ ধারা) মামলা চলছে ১৭৩ জনের বিরুদ্ধে। ১৯৭ জন ভোট প্রত্যাশীর বিরুদ্ধে মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধ সংগঠিত করার অভিযোগ রয়েছে। ধর্ষণের অভিযোগে (৩৭৬ ধারা) মামলা চলছে ১৬ জনের বিরুদ্ধে।

দাগি বা ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্তদের প্রার্থী করার ক্ষেত্রে বাকি দলগুলিকে টেক্কা দিয়েছে দেশের শাসকদল বিজেপি। পদ্ম শিবিরের ৪৪০ প্রার্থীর মধ্যে ১৯১ জনই ‘দাগি’। সবচেয়ে বেশি মামলা রয়েছে কেরলের ওয়ানাডে রাহুল গান্ধির বিরুদ্ধে দাঁড়ানো পদ্ম প্রার্থী কে সুরেন্দ্রন। তার বিরুদ্ধে ২৪৩টি মামলা রয়েছে। বিজেপির পাশাপাশি কংগ্রেসের ৩২৭ প্রার্থীর মধ্যে ১৪৩ জনই ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত। ‘দাগিদের’ প্রার্থী করায় পিছিয়ে নেই ‘স্বচ্ছ’ রাজনীতির বুলি আওড়ানো সিপিএমও। স্বঘোষিত সর্বহারার দলের ৫২ প্রার্থীর মধ্যে ৩৩ জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। বাম শাসিত কেরলের ৩৫ শতাংশ প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে।

এডিআরের রিপোর্ট অনুযায়ী, লোকসভার ভোটে দাগি প্রার্থীদের সংখ্যা ক্রমাগত বেড়ে চলেছে। ২০০৯ সালের ভোটে যেখানে ১৫ শতাংশ প্রার্থী ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত ছিলেন, সেখানে এবার ২০ শতাংশ প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

বুধবার লোকসভায় স্পিকার পদে ভোটাভুটি সকাল ১১টায়

লোকসভার অধ্যক্ষ পদে মনোনয়ন জমা দিলেন কংগ্রেসের কে সুরেশ

ফের লোকসভার অধ্যক্ষ পদে ওম বিড়লাকে বেছে নিল বিজেপি

লোকসভার অধ্যক্ষ পদে ভোটাভুটি এড়াতে খাড়গেকে আর্জি রাজনাথের

জলের দাবিতে টানা অনশন, হাসপাতালে ভর্তি আতিশী

ট্রাক্টরে চেপে সংসদ ভবনে পৌঁছলেন সিপিএম সাংসদ

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর