এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

বোলপুরে প্রসিদ্ধ মিষ্টির দোকানে দইবড়া খেয়ে অসুস্থ ৫০ জন

নিজস্ব প্রতিনিধি, বোলপুর: সর্বমঙ্গলা মিষ্টির দোকানে দইবড়া খেয়ে অসুস্থ প্রায় ৫০ জন। সংশ্লিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি অনেকেই। মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এলাম। কর্তৃপক্ষের শাস্তি দাবি করছি, সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট। মিষ্টির দোকানে শাটার বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ গ্রাহকদের। শনিবার বিরাট উত্তেজনা বীরভূমের বোলপুরের শান্তিনিকেতন(Shantinikatan) সর্বমঙ্গলা মিষ্টির দোকানে। অভিযোগের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন মিষ্টির দোকানের মালিক।

বীরভূমের বোলপুরে(Bolpur) শান্তিনিকেতন রোডের ওপর সুপার মার্কেটে বহু বছরের পুরনো সর্বমঙ্গলা নামক মিষ্টির দোকান রয়েছে। দুদিন আগে মিষ্টির দোকানে দইবড়া খেয়ে বোলপুর শান্তিনিকেতনের প্রায় ৫০ জন স্থানীয় বাসিন্দারা গুরুতর অসুস্থ হন। কেউ ভর্তি রয়েছেন বোলপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। কেউ আবার ভর্তি হয়েছেন বিশ্বভারতীর নিজস্ব হাসপাতালে। সকলের পেটের সমস্যা। মাথা ঘুরছে। শরীর ভীষণ দুর্বল। চিকিৎসা চলছে।

দিন কয়েক ধরে দইবড়া(Dai Bara) আতঙ্কে ভুগছে বোলপুর শান্তিনিকেতন। অথচ কোন হেলদোলই নেই মিষ্টির দোকানের মালিক শ্যামল মন্ডলের। এদিন অসুস্থ হয়ে পড়া মানুষজনদের পরিজনরা জমায়েত করে শান্তিনিকেতন রোডের উপর সর্বমঙ্গলা মিষ্টির দোকানের সামনে। ভরা বাজার। প্রচুর মানুষজন। বিক্ষুব্ধরা মিষ্টির দোকানের সামনে দীর্ঘ সময় ধরে বিক্ষোভ দেখানোর পর দোকানের শাটার বন্ধ করে দেয়।সেই সময়ই আবার পশ্চিমবঙ্গ মিষ্টান্ন ব্যবসায়ী বীরভূম শাখার কর্মীদের নিয়ে হাজির মিষ্টির দোকানের মালিক শ্যামল মন্ডল। মিষ্টির দোকানে ক্ষোভের আগুন জ্বলছিল বিক্ষোভকারীদের মধ্যে। মিষ্টি ব্যবসায়িক সংগঠনের লোকজন ও মিষ্টির দোকানের মালিককে সামনে পেয়ে ক্ষোভের আগুন আরো বেড়ে যায় বিক্ষুব্ধদের মধ্যে।
বিক্ষুব্ধদের মধ্যে সৈকত কুমার সিংহ তার বন্ধু হাসপাতালে ভর্তি। কৃষ্ণেন্দু হাজরা, তার ভাগ্নি দইবড়া খেয়ে অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসাধীন। তাদের অভিযোগ, সর্বমঙ্গলার মিষ্টির দোকান থেকে দইবড়া খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে প্রায় ৫০ জন। কেউ হাসপাতালে ভর্তি কেউ আবার বাড়িতে থেকে চিকিৎসা চালাচ্ছে।

অনেকেই আতঙ্কিত ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। মিষ্টির দোকানের(Sweets Shop) মালিক কোন খবর নেয়নি। এভাবে দায় এড়িয়ে যেতে পারে না। আমরা চাই মিষ্টির দোকানের মালিকের কঠোর শাস্তি হোক। প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমরা ৭০ বছর ধরে মিষ্টির ব্যবসা চালিয়ে আসছি। এ ধরনের ঘটনা প্রথম। কোন চক্রান্ত হয়েছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। মিষ্টির কারখানার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখব। কর্মীরা চক্রান্ত করে কিছু করেছি কিনা। তবে পুরো ঘটনা দায় শিকার আমি করছি। মন্তব্য সর্বমঙ্গলা মিষ্টির দোকানের মালিক শ্যামল মন্ডলের।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

সল্টলেকের বিভিন্ন প্রবেশ পথে শুরু কেন্দ্রীয় বাহিনীর নাকা তল্লাশি

ধামাখালিতে অস্থায়ী শিবির খুললেন সিবিআই এর আধিকারিকরা

লক্ষ্মী ভান্ডারকে পাথেয় করে নববারাকপুরে ঘরে ঘরে রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য্য

প্রতিহিংসা !পূর্ব মেদিনীপুরের দুই তৃণমূল নেতার বাড়িতে সিবিআই হানা

শেষ ইচ্ছেপূরণ, ভোট দিয়েই মৃত্যু হাওড়ার বৃদ্ধার

সিএএতে আবেদন করলে ভোটের পরে জেলে ভরে দেবে, দাবি মমতার

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর