এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

প্রয়াত উস্তাদ রাশিদ খান, গান স্যালুটে বিদায় জানাবে রাজ্য সরকার

নিজস্ব প্রতিনিধি: শেষ রক্ষা আর হল না! মারা গেলেন রাজ্যের বিশিষ্ট শাস্ত্রীয় সঙ্গীতশিল্পী উস্তাদ রশিদ খান। মঙ্গলবার দুপুর ৩.৪৫ মিনিট নাগাদ পিয়ারলেস হাসপাতালে মারা গিয়েছেন উস্তাদ রশিদ খান। মাত্র ৫৫ বছরেই থেমে গেল উস্তাদ রশিদ খানের উদার্ত কন্ঠস্বর। দেশের সঙ্গীত মহলের অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন উস্তাদ রশিদ খান। যিনি ছিলেন ভারতীয় রাগ সঙ্গীতের অন্যতম উস্তাদ। বাংলার অন্যতম সম্পদকে হারিয়ে শোকাহত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিছুক্ষন আগেই হাসপাতাল থেকে শোকপ্রকাশ করে বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞের মৃত্যুর খবরে জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ সন্ধ্যে ৬ টা পর্যন্ত পিয়ারলেস হাসপাতালে থাকবে রশিদ খানের মরদেহ।

এরপর সারা রাত ‘পিস ওয়ার্ল্ড’-এ থাকবে উস্তাদের মৃতদেহ। এরপর আগামিকাল সকালে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হবে রবীন্দ্রসদনে। দায়িত্বে থাকবেন ইন্দ্রনীল সেন, রাজ্যের মন্ত্রী অরুপ বিশ্বাস, ফিরহাদ হাকিম, কলকাতার পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েল। গান স্যালুটে বিদায় জানানো হবে রশিদ খান কে। তাঁর মৃত্যু সত্যিই গোটা দেশের কাছে বিরাট ক্ষত। শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে অন্যতম নক্ষত্র ছিলেন উস্তাদ রশিদ খান। গত কয়েক বছর ধরেই প্রস্টেট ক্যান্সারে ভুগছিলেন। যদিও সময়ের ব্যবধানে আস্তে আস্তে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছিলেন। কিন্তু গত নভেম্বরে আচমকাই মস্তিষ্ক রক্তক্ষরণ হয়ে অর্থাৎ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে পিয়ারলেস হাসপাতালে ভর্তি হন গায়ক।

২০২৩ সালের শেষে চিকিৎসকরাই জানান, তাঁদের চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন রশিদ খান। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। মঙ্গলবার সকালে আচমকাই আবার তাঁর অবস্থার অবনতি হতে শুরু হলে শিল্পীকে ভেন্টিলেশনে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেই আজ দুপুর ৩.৪৫ মিনিট নাগাদ প্রয়াত হন উস্তাদ রশিদ খান। রেখে গেলেন দুই কন্যা এবং এক পুত্রকে। এদিন হাসপাতালে দাঁড়িয়ে মমতা বলেন, ‘রশিদ আমার ভাইয়ের মতো। সে আমাকে মা বলে সম্মান করত। শেষে আমি তাঁকে জোর করি গান শুরু করার। রশিদ আমার ভাইয়ের মতো, গঙ্গাসাগর থেকে জয়নগরে গিয়ে ফোন এসেছিল। নবান্নে ফিরে খবর আসে, কিছু একটা হয়েছে। ক্যান্সারের খরচ দিয়েছিলাম। ওঁকে আমি এতটাই ভালবাসতাম যে, ওকে চিকিৎসার জন্যে বিদেশে পাঠিয়েছিলাম।’

১৯৬৮ সালের ১ জুলাই উত্তরপ্রদেশের বদায়ূঁতে জন্ম রাশিদের। তিনি রামপুর-সাসওয়ান ঘরানার শিল্পী। যার প্রতিষ্ঠাতা ইনায়েত হুসেন খাঁ-সাহিব। রাশিদ তালিম নিয়েছেন এই ঘরানারই আর এক দিকপাল উস্তাদ নিসার হুসেন খাঁ-সাহিবের কাছ থেকে। যিনি ছিলেন রাশিদের দাদু। তবে তিনি মূলত শাস্ত্রীয় সঙ্গীত গাইলেও বলিউড এবং টলিউডের বহু ছবিতে গান গেয়েছেন। তাঁর ঝুলিতে রয়েছে সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কার, পদ্মশ্রী, পদ্মভূষণ সম্মান এবং বঙ্গবিভূষণ সম্মান-সহ একাধিক সম্মানীয় পুরস্কার।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

কেন অ্যাওয়ার্ড শোতে যেতে অপছন্দ আমিরের, জানালেন সুপারস্টার নিজেই

সামান্থাকে ভুলে নতুন প্রেমে মজে নাগা চৈতন্য, শোভিতাকে নিয়ে কোথায় গেলেন?

কুখ্যাত গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইকে রিম্যান্ডে আনতে পারবে না পুলিশ, কেন?

রণবীর সিংয়ের ডিপফেক ভিডিও ভাইরাল, অভিযুক্ত X ব্যবহারকারীর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

‘রুসলান’-এর প্রচারে কলকাতায় আয়ূষ, শহরবাসীর আতিথেয়তায় মজলেন

মনোকিনি পরে সমুদ্রতটে ময়লা কুড়োচ্ছেন মিমি, কেসটা কী?

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর