এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

মালদার বারোদুয়ারি ডিয়ার পার্কে দুটি হরিণের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা:ব্লক দপ্তরের অধীনে থাকা ডিয়ার পার্কে দুটি হরিণের মৃত্যু। চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু দুটি হরিণের, এমনটাই অভিযোগ। অসুস্থ আরো এক হরিণ। ঘটনাটি মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের বারোদুয়ারি ডিয়ার পার্কে(Deer Park)। অভিযোগ ডিয়ার পার্কে নেই পশু চিকিৎসা কেন্দ্র। নেই পর্যাপ্ত পরিকাঠামো। তাই হরিণদের যথপোপযুক্ত খাদ্য এবং পরিচর্যা না পেয়ে অসুস্থ হয় হরিণ। মেলে নি চিকিৎসা। ফলে মৃত্যু হয়েছে হরিণের অভিযোগ এমনই। মৃত্যুর কারণ জানতে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হচ্ছে হরিণদের দেহ। ক্ষুব্ধ পশুপ্রেমীরাও।

মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর(Harishchandrapur) ২ নম্বর ব্লক দপ্তরের পাশেই রয়েছে বারোদুয়ারি ডিয়ার পার্ক।এই পার্কে ছিল মোট ৩২টি হরিণ। তারই মধ্যে দুটি হরিণের মৃত্যু হয়েছে মঙ্গলবার। আরো একটি হরিণ অসুস্থ।মূলত এই ডিয়ার পার্কের দেখভাল করেন হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক তাপস কুমার পাল।কিন্তু হরিণ অসুস্থ হলে হরিশ্চন্দ্রপুরে পশুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ঝা চকচকে ভবন রয়েছে। তবে নেই পশু চিকিৎসক।অন্যদিকে, পশু স্বাস্থ্য আধিকারিক অমিত খুটিয়া মেনে নিয়েছেন পর্যাপ্ত চিকিৎসক নেই। দীর্ঘদিন ধরে স্থায়ী ভাবে কোন চিকিৎসক নিয়োগ হয়নি। যার ফলে সমস্যা হয় অনেক সময়। চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুর ঘটনা সামনে আসতেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক।

জেলা বিজেপি নেতা কিষাণ কেডিয়ার অভিযোগ এই রাজ্যে মানুষও স্বাস্থ্য পরিষেবা পাচ্ছে না। পশুরাও পাচ্ছে না। ঝা চকচকে ভবনের নামে শুধুই আইওয়াশ।যদিও তৃণমূলের সভাপতি জিয়াউর রহমানের দাবি ঐতিহ্যবাহী ডিয়ার পার্কে দুটি হরিণের মৃত্যু দুর্ভাগ্যজনক। কিন্তু ওই পার্কে তৃণমূল সৌন্দর্যায়নের কাজ করেছে। যেটা দীর্ঘদিনের বাম আমলে হয়নি। এই বিষয়ে তারা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলবেন।

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

সল্টলেকের বিভিন্ন প্রবেশ পথে শুরু কেন্দ্রীয় বাহিনীর নাকা তল্লাশি

ধামাখালিতে অস্থায়ী শিবির খুললেন সিবিআই এর আধিকারিকরা

লক্ষ্মী ভান্ডারকে পাথেয় করে নববারাকপুরে ঘরে ঘরে রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য্য

প্রতিহিংসা !পূর্ব মেদিনীপুরের দুই তৃণমূল নেতার বাড়িতে সিবিআই হানা

শেষ ইচ্ছেপূরণ, ভোট দিয়েই মৃত্যু হাওড়ার বৃদ্ধার

সিএএতে আবেদন করলে ভোটের পরে জেলে ভরে দেবে, দাবি মমতার

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর