কলকাতার পুরনির্বাচনে ভোট হবে পুলিশ দিয়েই, ঘোষণা কমিশনের

Published by:
https://www.eimuhurte.com/wp-content/uploads/2021/09/em-logo-globe.png

Koushik Dey Sarkar

25th November 2021 1:03 pm | Last Update 25th November 2021 1:19 pm

নিজস্ব প্রতিনিধি: কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে আপাতত কোনও পরিকল্পনা নেই। কলকাতা পুরনিগমের নির্বাচন করানোর জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে ডিজি ও সিপি কী রিপোর্ট দেন সেটা দেখেই কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে কমিশন। তবে পুলিশ প্রশাসনের তরফ থেকে নির্বাচনের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীর সুপারিশ না করলে পুলিশ দিয়েই হবে নির্বাচন। বৃহস্পতিবার রাজ্য নির্বাচন কমিশন কলকাতা পুরনিগমের নির্বাচন সংক্রান্ত ঘোষণা ও তা নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করতে গিয়ে এমন কথাটাই জানালো। একই সঙ্গে রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাস জানিয়েছেন, কলকাতা পুরনিগমের নির্বাচন হবে আগামী ১৯ ডিসেম্বরেই। কলকাতার ১৪৪ ওয়ার্ডে ১৭০৭টি প্রেমিসেসে ৪৭৪২ বুথে নেওয়া হবে সেই ভোট। প্রায় ৪০ লক্ষ মানুষ সেই ভোট দেবেন। ১৯ তারিখ সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত হবে ভোটগ্রহণ। ফলাফল ঘোষণার দিনক্ষন অবশ্য এদিনের বিজ্ঞপ্তিতে কিছু জানানো হয়নি। তা পৃথক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানানো হবে বলে জানিয়েছেন সৌরভবাবু। তবে তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন ২১ ডিসেম্বর হতে পারে গণনা ও ফলাফল প্রকাশ।

এবারে বিরোধীরা বিশেষ করে বিজেপি সরব হয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীর ঘেরাটোপে পুরনির্বাচন করানো নিয়ে। কিন্তু এদিন সৌরভবাবুর সাংবাদিক বৈঠকের পরেই কার্যত পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে যে আগামী ১৯ ডিসেম্বর কলকাতা পুরনির্বাচন হতে চলেছে পুলিশি নিরাপত্তার মধ্যে দিয়েই। আর এই ঘোষণা বিজেপির কাছে একটা বড় ধাক্কা হয়ে দাঁড়ালো। একই সঙ্গে কমিশন এদিন জানিয়েছে কলকাতা পুরনির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হবে ইভিএমে। একই সঙ্গে কমিশন কোভিডের কথা মাথায় রেখে এদিন বেশ কিছু বিধিনিষেধ জারি করেছে। কমিশন জানিয়েছে, প্রচারের ক্ষেত্রে সন্ধ্যা সাতটা থেকে পরের দিন সকাল ১০টা পর্যন্ত মিটিং মিছিল করা যাবে না। জোর দিতে হবে ছোট ছোট মিটিংয়ের ওপর। বড় মিটিং করতে গেলে তা যতটা সম্ভব খোলামেলা বড় জায়গায় করতে হবে। বাড়ি বাড়ি প্রচারের ক্ষেত্রে প্রার্থী সহ সর্বাধিক ৫ জন থাকতে পারেন। কমিশন এটাও জানিয়েছে, এদিন থেকেই যেমন মনোনয়ন দাখিলের কাজ শুরু হয়ে যাচ্ছে তেমনি এদিন থেকেই কলকাতা পুরসভা এলাকায় আদর্শ আচরণ বিধিও লাগু হয়ে যাচ্ছে।

এদিন কমিশন কলকাতা পুরনিগমের নির্বাচন নিয়ে যে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে সেখানে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এদিন থেকেই মনোনয়ন দাখিল করা যাবে। ১ডিসেম্বর মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন। ২ ডিসেম্বর হবে স্ক্রটিনি। ৪ ডিসেম্বর প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের শেষদিন। ২২ ডিসেম্বরের মধ্যেই গোটা নির্বাচনী প্রক্রিয়া শেষ করে দেওয়া হবে। তার জেরে মনে করা হচ্ছিল ২২ তারিখেই হয়তো ভোট গণনা ও ফলাফল ঘোষিত হবে। তবে এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সৌরভবাবু জানান, ২০ তারিখ রিপোলের জন্য ধার্য করা হয়েছে। তাই ২১ তারিখই ভোট গণনা ও ফলাফল ঘোষিত হতে পারে। নিরাপত্তা নিয়ে রাজ্য পুলিশের ডিজি ও কলকাতা পুলিশের সিপি কী রিপোর্ট দেন সেটা দেখেই তাঁরা যেমন কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন তেমনি ভোট গণনা ও ফলাফল ঘোষণার দিনও তাঁরা জানিয়ে দেবেন। সেই জন্য পৃথক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ভোট গণনার দিন ও ফলাফলের কথা জানানো হবে। তবে সম্ভবত ২১ তারিখেই ভোট গণনা ও ফলাফল ঘোষিত হতে পারে। একই সঙ্গে কমিশন এটাও জানিয়েছে, কলকাতার সঙ্গেই হাওড়া পুরনিগমের ভোট হওয়ার কথা থাকলেও রাজ্য সরকার এখনও পর্যন্ত তাঁদের এই বিষয়ে কিছু জানায়নি। তাই হাওড়া পুরভোট নিয়ে তাঁরা কোনওরকমের ঘোষণা এদিন করছেন না। উল্লেখ্য, হাওড়া পুরনিগমের বিন্যাসে পরিবর্তনের জন্য একটি বিল এনেছে রাজ্য সরকার। সেই বিলে এখনও সই করেননি রাজ্যপালর জগদীপ ধনখড়। তার জেরেই হাওড়া পুরনিগমের নির্বাচন নিয়ে  জটিলতা তৈরি হয়েছে। সে জন্যই এদিন হাওড়ার নির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেনি কমিশন।  

More News:

Leave a Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

নজরকাড়া খবর

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

Subscribe to our Newsletter

86
মিশন দিল্লি, পিকের চাণক্যনীতি কতটা কাজ দিল মমতার?