এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




বাংলায় আসন কমেছে বিজেপির, শতবর্ষ পূর্তির প্রাক্কালে চিন্তিত সঙ্ঘ

Courtesy - Google




নিজস্ব প্রতিনিধি: দেশে লক্ষ্যপূরণের শ্লোগান ছিল, ‘আপকে বার ৪০০ পার’। কিন্তু সেই লক্ষ্যপূরণের অনেক আগেই থেমে গিয়েছে জয়যাত্রা। সেই যাত্রা থামিয়ে দিয়েছেন দেশেরই মানুষজন। জোট(NDA) থেমেছে ৩০০’র আগে, আর বিজেপি(BJP) থেমেছে ২৫০’রও নীচে। অধরা এবং হাতছাড়া একক সংখ্যাগরিষ্ঠতাও। বাংলার(Bengal) মাটিতে লক্ষ্য ছিল ২৫। অথচ এসেছে তার অর্ধেক। এমনকি ৫ বছর আগের ভোটে জেতা ৮টি আসনও হাতছাড়া। এদিকে দোরে কড়া নাড়ছে দলের আতঁড়ঘর রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের(RSS) প্রতিষ্ঠার শতবর্ষের উদযাপন। ঠিক এই রকম অবস্থায় কেন্দ্রের সরকারে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়ে ফেলা, গোবলয়ে আসন কমে যাওয়া যেমন সঙ্ঘকে অস্বস্তিতে ফেলেছে তেমনি বাংলার মতো রাজ্যেও আসন কমে যাওয়ার ঘটনা সঙ্ঘকে কার্যত নতুন করে ভাবতে বাধ্য করছে। প্রতিষ্ঠার ১০০ বছর পূর্ণ হওয়ার মুহুর্তে বাংলাকে নিয়ে চিন্তিত সঙ্ঘ।

আগামী বছর, অর্থাৎ ২০২৫ সালে সঙ্ঘের প্রতিষ্ঠার ১০০ বছর পূর্ণ হবে। তার আগে প্রত্যেক গ্রামে পৌঁছানোর লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছিল সঙ্ঘ। সেই লক্ষ্যের মধ্যে ছিল গ্রাম বাংলাও। কিন্তু সেই লক্ষ্য ধাক্কা খেয়ে গেল বাংলায় বিজেপির আসন কমে যাওয়ায়। সংগঠনের প্রচারের গতি নিয়েও তাই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। বাংলার বুকে গ্রামে গ্রামে যারা এত দিন বিজেপির হাওয়ায় ভর দিয়ে আমজনতাকে সঙ্ঘের সঙ্গে জুড়ে দিতে চাইছিলেন তাঁরা কি এ বার সরে যাবেন? সঙ্ঘের অন্দরেই সে সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। যদিও সঙ্ঘের দাবি, বিজেপির জয়-পরাজয়ের সঙ্গে তাদের সংগঠনের কর্মসূচি তৈরি হয় না। তাঁরা ২ বছর আগে থেকে ১০০ বছর উদযাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। সে লক্ষ্যের কাজ অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে। তবে উত্তরবঙ্গের অনেক গ্রামে পৌঁছতে পারলেও দক্ষিণবঙ্গে সঙ্ঘের কাজে এবার ধাক্কা লাগতে পারে। দক্ষিণবঙ্গে বিজেপির আসন কমে যাওয়ায় খুব সহজ হবে না সব গ্রামে গিয়ে পৌঁছানো।

উত্তরবঙ্গের ৮টি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে উনিশের ভোটে বিজেপি জিতেছিল ৭টি আসন। এবার সেই ৭টি আসনের মধ্যে একমাত্র কোচবিহার হাতছাড়া হয়েছে। কিন্তু বাকি ৬টি আসনই তাঁদের দখলে আছে। কোচবিহার যে হাতছাড়া হতে পারে সেটা সঙ্ঘের নেতারা আগেই পদ্মশিবিরকে সতর্ক করেছিলেন বলে দাবি সঙ্ঘের সদস্যদের। কিন্তু সেই সতর্কতাকে সেভাবে গুরুত্ব দেয়নি পদ্মশিবির। বিজেপির সঙ্গে আরএসএসের সরাসরি রাজনৈতিক সম্পর্ক না থাকলেও ভাবাদর্শগত মিল রয়েছে। সঙ্ঘের অনেক কর্মী, নেতাকে পরবর্তীতে বিজেপি নেতা হতে দেখা গিয়েছে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে নতুন করে সঙ্ঘের কর্মী কতটা বাড়বে, সেটা নিয়ে সন্দেহ থাকছে। আর সঙ্ঘ ধাক্কা খেলে যে বিজেপিকেও ধাক্কা খেতে হবে, সেটা কে না জানে।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

ফের বঞ্চনা, রাজ্যের সমস্ত শিক্ষা অভিযানের টাকা বন্ধ করল  কেন্দ্র

ডায়মন্ডহারবারে পরাজিত অভিজিৎকে শোকজ  বিজেপির

টাকা দিলেই এমডি বা এমএস পরীক্ষায় পাশ , নিট কাণ্ডের মাঝেই প্রস্তাব পেলেন চিকিৎসক

মানিকচকে পুকুরের জলে বিষ মিশিয়ে মাছ নষ্ট , ক্ষতির পরিমাণ লক্ষাধিক

রানীগঞ্জে ডাস্টবিনে সদ্যজাতর দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য, তদন্তে পুলিশ

ফের পিছল দক্ষিণবঙ্গের পূর্বাভাস, সপ্তাহের শেষ ভাগে দক্ষিণবঙ্গের জেলাতে আগমন ঘটতে পারে বর্ষার

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর