এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




রাজ্যের সব পুরসভায় Building Plan অনুমোদনে থাকবে পুরপ্রধানের নেতৃত্বাধীন কমিটি

Courtesy - Facebook and Google




নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যের সব পুরসভায় এলাকায় Building Plan অনুমোদনের কাজ সহজ করার পথ নিল রাজ্যের ক্ষমতাসীন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের(Mamata Banerjee) সরকার। এতদিন রাজ্যের সব পুরসভা এলাকায় নতুন বাড়ির নকশা অনুমোদন করত Board of Councilors। এবার সেই ব্যবস্থার ক্ষেত্রে পরিবর্তন ঘটানো হচ্ছে। এবার থেকে সেই কাজ করবে পুরপ্রধানের নেতৃত্বাধীন বিশেষ কমিটি। কমিটির মাথায় থাকবেন পুরপ্রধান। এছাড়াও সেই কমিটিতে থাকবেন উপ-পুরপ্রধান, Board of Councilors মনোনীত একজন কাউন্সিলার, পুরসভার একজন Finance Officer এবং ওই পুরসভারই একজন ইঞ্জিনিয়ার। এর জন্য আইনে বেশ কিছু সংশোধনী আনা হচ্ছে বলেও নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে।  

নবান্নের আধিকারিকদের দাবি, কলকাতা পুরনিগমের ক্ষেত্রে Building Plan অনুমোদনের জন্য আলাদা কমিটি থাকলেও রাজ্যের পুরসভাগুলির ক্ষেত্রে তা ছিল না। এতদিন সেই সব পুরসভায় এই Building Plan অনুমোদন করতো Board of Councilors। কিন্তু ঘটনা হচ্ছে এই Board of Councilors’র মিটিং কতদিন অন্তর হবে, তার কোনও নিয়ম নেই। সবটাই নির্ভর করে চেয়ারম্যানের ওপর। চেয়্যারম্যানরা ব্যস্ত হয়ে পড়লে সেই মিটিং পিছিয়ে যায়। ফলে অনেক সময়েই Building Plan অনুমোদনের কাজ আটকে যায়। কোনও কারণে পুরসভাতে বোর্ড গঠন সম্ভব না হলে Board of Councilors’র অস্তিত্বও থাকে না। তখন Building Plan অনুমোদনের প্রক্রিয়াটাই থমকে যায়। এই সমস্যা মেটাতে Bengal Municipal Act সংশোধন করে Building Plan অনুমোদনের ক্ষমতা কমিটির হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে। এর ফলে শহরতলি এলাকায় বাড়ির নকশা অনুমোদন করাতে কাঠখড় পোড়াতে হবে না।  

এছাড়াও আরও একটি বিষয় থাকছে কমিটির হাতে Building Plan অনুমোদনের ক্ষমতা তুলে দেওয়ার পিছনে। আর তা হল দুর্নীতির ঘটনা ঠেকানো। দেখা যাচ্ছে, প্রতিটি পুরসভাতেই Board of Councilors’র সিংহভাগ সদস্যই শাসকদলের মনোনীত। তাই অনেক সময়ে তাঁদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ ওঠে। আলাদা কমিটি তৈরি হলে কেউ দোষারোপ করতে পারবে না। সংশোধিত আইন অনুযায়ী, পুরসভার কাছ থেকে কেউ Building Plan’র অনুমোদন পেলে ৩ বছর পর্যন্ত তার মেয়াদ থাকবে। সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আরও ২ বছরের জন্য তা Renew করানো যাবে। তার জন্য কত টাকা Fee লাগবে, সেটা Chairman in Council সিদ্ধান্ত নেবে। Building Committee যে সময়সীমা বেঁধে দেবে, তার মধ্যেই বাড়ি তৈরির কাজ শেষ করতে হবে। বাড়ি তৈরির কাজ শুরু হওয়া থেকে Certificate of Occupancy ইস্যু করা পর্যন্ত আবেদনকারীকে এক সেট Building Plan’র কপি, Building Permit, Premises Number, LBS অথবা Architect’র নাম এবং বাড়ির মালিকের নাম টাঙিয়ে রাখতে হবে সাইটে।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে গবেষণায় নজর কাড়লেন বাঁকুড়ার অয়ন

রাজ্যের দুই প্রান্তে বৃষ্টির মধ্যে বাজ পড়ে মৃত্যু দুজনের

বিধাননগরের পুলিশ কমিশনার গৌরব শর্মা অপসারিত

সিলিকোসিস আক্রান্তদের চিকিৎসায় রাজ্য জুড়ে শিবির করবে স্বাস্থ্য দফতর

বিজেপির পার্টি অফিসে চলল চেয়ার ছোঁড়াছুড়ি, ধস্তাধস্তি, মারামারি

বদল হল এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি, ভোগান্তিতে যাত্রীরা

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর