এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine

২৬ হাজার শিক্ষকের চাকরি যাওয়ার মধ্যেই লক্ষাধিক কর্মসংস্থানের ঘোষণা মমতার

নিজস্ব প্রতিনিধি, আউশগ্রাম: কলকাতা হাইকোর্টের এক রায়ে চাকরি গিয়েছে প্রায় ২৬ হাজার শিক্ষকের। আর একসঙ্গে প্রায় ২৬ হাজার কর্মজীবীর চাকরি যাওয়া নিয়ে ফের সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সঙ্গে রাজ্যে আরও লক্ষাধিক কর্মসংস্থানের ঘোষণা করলেন। কোথায় ওই কর্মসংস্থান হবে তাও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন।

বুধবার বর্ধমানের আউশগ্রামের নির্বাচনী সভায় ২৬ হাজারের শিক্ষকের চাকরি যাওয়ার প্রসঙ্গ টেনে এনে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘চাকরি দেওয়ার ক্ষমতা নেই, চাকরি কেড়ে নেওয়ার ক্ষমতা। কোন দফতর কীভাবে চাকরি দেয়, সেটায় আমি মাথা ঘামাই না। সেটা সেই দফতরের ব্যাপার। কিন্তু একসঙ্গে ২৬ হাজার শিক্ষকের চাকরি যাওয়ার ঘটনায় আমার খারাপ লেগেছে।’ বিজেপিকে খোঁচা দিয়ে বলেন, ‘বাংলায় কি সব স্কুল বন্ধ হয়ে যাবে? বাংলায় কি শিক্ষকরা চাকরি করবে না? কোর্ট আটকে দিচ্ছে। বিজেপির একটা মহামিলন কেন্দ্র। অন্য কেউ যদি বিচার হয়, বিচার পাবেন না। যারা মানুষের চাকরি খাচ্ছে, তারা আসামীদের জামিন দিয়ে দিচ্ছে। আমি বিচারপতিদের নিয়ে বলব না। কিন্তু আমি রায় নিয়ে বলছি। কিন্তু একবারে ২৬ হাজার চাকরি খাওয়া! এটা কি একেবারে মজার মুলুক?’

এর পরেই লক্ষাধিক কর্মসংস্থানের ঘোষণা করে মমতা বলেন, ‘প্রচণ্ড গরম পড়ছে। ক্রমাগত বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ছে।  কয়েক বছরে বাংলা বিদ্যু‍ৎ উ‍ৎপাদনে রেকর্ড করবে। সারা দেশকে বিদ্যুৎ বিক্রি করবে। ১ লক্ষ ছেলেমেয়ের চাকরি হবে দেউচা পাঁচামি কয়লা প্রকল্পে।’ সরকারি কর্মচারিদের বিজেপিকে ভোট না দেওয়ার আর্জি জানিয়ে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘সরকারি কর্মচারীদের বলব, বিজেপিকে একটা ভোট দেবেন না! কে জানে, আবার চাকরি খাবে কবে? এরা কোর্ট কিনে নিয়েছে, এরা হাইকোর্ট কিনে নিয়েছে, এরা সিবিআই, এনআইএ কিনে নিয়েছে। আমি সুপ্রিম কোর্টের কথা বলছি না, সুপ্রিম কোর্টের থেকে এখনও বিচারের আশা করি।’

Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

সাইক্লোন এগোচ্ছে দ্রুতগতিতে স্থলভাগের দিকে, রবিবার সারারাত চলবে তাণ্ডব

ঝড় মোকাবেলায় প্রস্তুত হলদিয়া, নবদ্বীপ পুরসভা চালু করল বিশেষ হেল্প লাইন নম্বর

‘বিষদাঁত আমি ভেঙে দেব, কী নোটিস পাঠাতে হয় আমি দেখিয়ে দেব’, পাট্টার আশ্বাস মমতার

রামলালকে কাঁঠাল দিয়ে বরন করল জঙ্গলমহলের গ্ৰামবাসীরা

‘আমার প্রার্থী সায়নী, আগের বার আপনারা অতটা সার্ভিস পাননি’ মিমি প্রসঙ্গে মমতা

হাওড়ার শালিমার স্টেশনে দূরপাল্লার দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনের চাকায় আটকানো হল চেন ও তালা

Advertisement
এক ঝলকে
Advertisement

জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর