এই মুহূর্তে

WEB Ad Valentine 3

WEB Ad_Valentine




প্রশ্নের মুখে বাংলার দুই বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে ভোটের হার

Courtesy - Google




নিজস্ব প্রতিনিধি: চলতি লোকসভা নির্বাচনের(Loksabha Election 2024) সঙ্গে বাংলার(Bengal) ২টি বিধানসভা কেন্দ্রেরও উপনির্বাচন(Bye Election of Two Assembly Seats) হয়েছিল। একটি কেন্দ্র ছিল মুর্শিদাবাদ জেলার ভগবানগোলা(Bhagobangola Assembly), অপরটি উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বরানগর(Baranagar Assembly)। এর মধ্যে ভগবানগোলা রয়েছে মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের(Murshidabad Constituency) মধ্যে এবং বরাহনগর বিধানসভা রয়েছে দমদম লোকসভা কেন্দ্রের(Dumdum Constituency) মধ্যে। যেদিন মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হয়েছিল, সেদিন ভগবানগোলা বিধানসদ্ভা কেন্দ্রের জন্যও ভোট নেওয়া হয়। আবার যেদিন দমদম লোকসভা কেন্দ্রের জন্য ভোটগ্রহণ হয়েছিল, সেদিন বরানগরের ভোটও নেওয়া হয়। কিন্তু এদিন নির্বাচন কমিশন(ECI) ভোটদানের হারের(Voting Percentage) যে পরিসংখ্যান হাজির করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে, একই দিনে ভোট হওয়া সত্ত্বেও, দুই লোকসভার তুলনায় দুই বিধানসভা কেন্দ্রে কম ভোট পড়েছে। আর তাই এই ভোট দানের হার নিয়ে এখন প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। 

গত ৭ মে মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রে ভোট নেওয়া হয়েছিল। সেদিনই ভগবানগোলাতেও বিধানসভার উপনির্বাচনের ভোট নেওয়া হয়। ওই বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটাররা সেদিন বুথে গিয়ে দুটি কেন্দ্রের জন্য পৃথক পৃথক ভাবে ভোট দিয়ে বনার হয়েছিলেন। দমদম লোকসভা কেন্দ্রের ভোট নেওয়া হয় গত ১ জুন। সেদিনই ভোটগ্রহণ করা হয় বরানগর বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনেরও। বরানগর বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটাররাও সেদিন বুথে গিয়ে দুটি ভোট দিয়েই বেড়িয়ে আসেন। অথচ এখন দেখা যাচ্ছে, বরাহনগরের উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে ৭৩.১৮ শতাংশ। আবার, দমদম লোকসভার ভোটের পরিসংখ্যান বলছে, ওই বিধানসভা কেন্দ্র থেকে লোকসভায় ভোট পড়েছে ৭৩.২৩ শতাংশ। ভোটের তারতম্য ০.০৫ শতাংশ। একই ভাবে, ভগবানগোলার উপনির্বাচনে ভোট পড়েছে ৮০.০৭ শতাংশ। আবার, মুর্শিদাবাদ লোকসভার ভোটের পরিসংখ্যান বলছে, ওই বিধানসভা কেন্দ্র থেকে লোকসভায় ভোট পড়েছে ৮০.২৬ শতাংশ। ভোটের তারতম্য ০.১৯ শতাংশ। এই ঘটনা কীভাবে ঘটল তা নিয়েই থাকছে প্রশ্ন।

যদিও প্রাথমিক ভাবে অনেকে বলছেন, বুথে গিয়ে কোনও কোনও ভোটার লোকসভার ইভিএমে বোতাম টিপে ভোট দিলেও, বিধানসভা উপনির্বাচনের ইভিএমের বোতামে চাপ দেননি। তার ফলে দু’টি ভোটের হারে পার্থক্য তৈরি হয়েছে। তবে সেই সম্ভাবনা কম। আর চট করে এই যুক্তি কেউ মেনেও নিতে পারবেন না। ঘটনা হল যে, লোকসভা কেন্দ্রের নিরিখে ০.০৫ শতাংশ কিংবা ০.১৯ শতাংশ ভোট আদৌ কম নয়। ফলাফল নির্ধারণের ক্ষেত্রে তা বড় ভূমিকা নিতেই পারে। তবে যে পদ্ধতিতে লোকসভা এবং বিধানসভার উপনির্বাচনে একসঙ্গে ভোটগ্রহণ হয়েছে, তাতে উভয় ক্ষেত্রেই ভোটের হার সমান হওয়ার কথা। কিন্তু তা হয়নি। এখন কী ভাবে এই তারতম্য হল, সেটা নিয়েই প্রশ্ন উঠছে।




Published by:

Ei Muhurte

Share Link:

More Releted News:

নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর ধমক খেয়ে মালদায় ঝাঁটা হাতে সাফাই করতে রাস্তায় নামলেন বিডিও

প্রথম দিনেই স্নাতকের ভর্তি কেন্দ্রীয় পোর্টালে আবেদন জমা লক্ষাধিক পড়ুয়ার

সল্টলেক সহ শহর জুড়ে হকারদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু পুলিশ ও পুরসভার

হাওড়া থেকে লেডিস স্পেশাল বাসের যাত্রাপথের সূচনা করলেন পরিবহন মন্ত্রী

বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁর বিরুদ্ধে জারি গ্রেফতারি পরোয়ানা

দুন এক্সপ্রেসে দুষ্কৃতী হামলা, মাথা ফাটল যাত্রীদের

Advertisement




এক ঝলকে
Advertisement




জেলা ভিত্তিক সংবাদ

দার্জিলিং

কালিম্পং

জলপাইগুড়ি

আলিপুরদুয়ার

কোচবিহার

উত্তর দিনাজপুর

দক্ষিণ দিনাজপুর

মালদা

মুর্শিদাবাদ

নদিয়া

পূর্ব বর্ধমান

বীরভূম

পশ্চিম বর্ধমান

বাঁকুড়া

পুরুলিয়া

ঝাড়গ্রাম

পশ্চিম মেদিনীপুর

হুগলি

উত্তর চব্বিশ পরগনা

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা

হাওড়া

পূর্ব মেদিনীপুর